হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সবুজ চা এবং কফি পান করুন

ওমায়ের আহসান ।।

সবুজ চা বা গ্রিন টি ও কফির উপকার অনেক। নিয়মিত সবুজ চা পান করলে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে বলে ডাক্তাররা বলে থাকেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞানীরা মনে করেন, গ্রিন টি শরীরের প্রতিটি শিরায় কাজ করে। ফলে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। তাই কোনো কারণে রক্তচাপে পরিবর্তন হলেও কোনো ধরনের ক্ষতি করে না। এমনিভাবে গ্রিন টি দেহে রক্ত জমাট বাঁধতে দেয়া না। ফলে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কমে যায়।

জাপানের একটি সমীক্ষা এবং একটি ব্যাপক জরিপে দেখা গেছে, উচ্চ মাত্রায় গ্রিন টির ব্যবহার স্ট্রোক এবং হৃদরোগের ক্ষেত্রে উপকারী হতে পারে। ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা বলেছেন, স্ট্রোকের পরও বেঁচে যাওয়া নারী-পুরুষরা যদি প্রতিদিন সাত কাপ গ্রিন টি পান করেন তাহলে এটি তাদের আয়ু বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কাজে দেবে।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, এই ধরনের মানুষের মৃত্যুর হার ৬৪% পর্যন্ত মতো কম ছিল। এর বিপরীতে যারা চা পান করেননি তাদের মধ্যে এ মাত্রা দেখা যায়নি। একইভাবে একবার হার্ট অ্যাটাকের পরে যারা একই পরিমাণে গ্রিন টি পান করার অভ্যাস করেছেন তাদের মৃত্যু হার বা দ্বিতীয়বার হার্ট অ্যাটাকের হার ৫৩% কম দেখা গেছে।

তবে আরেক গবেষণায় জানা গেছে, গ্রিন টি ছাড়া কফির মধ্যেও রয়েছে ঠিক একই বৈশিষ্ট্য। কফি কেবল হৃদরোগীদের নিরাময় করে না, বরং সুস্থ মানুষকে হৃদরোগ থেকে দূরে রাখে। তবে অনেক পক্ষাঘাতগ্রস্থ রোগীর পক্ষে এটি ভাল কাজ করেনি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এতে এটা প্রমাণ হয় না যে, কফি বা সবুজ চা পান করলে আয়ু বৃদ্ধি হয়, বরং বলা হয়েছে, স্ট্রোক এবং হার্ট অ্যাটাকের পর এগুলোর ব্যবহার আরেকবার হার্ট এটাক বা স্বাস্থ্যের আরও অবনতি রোধ করতে পারে।

ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ড. হিরোয়াসু আইসো ৪ ফেব্রুয়ারি তাঁর গবেষণা প্রকাশ করেছিলেন, যার মধ্যে ৪০ থেকে ৭৯ বছর বয়সী ৪৬ হাজার মানুষকে নিয়ে সমীক্ষা পেশ করা হয়েছে। এই সমস্ত মানুষকে ২০ বছর ধরে পর্যবেক্ষণ করা হয়। যাদের মধ্যে স্ট্রোক থেকে বেঁচে থাকা ৪৭৮ জন এবং প্রথমবার হার্ট অ্যাটাক সহ্য করে ১২১৪ জন বেঁচে ছিল।

সমীক্ষার এ প্রক্রিয়াটিতে সকল অংশগ্রহণকারীদেরকে তাদের খাবার, ব্যায়াম এবং গ্রিন টি বা কফির অভ্যাস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল। তবে 20 বছর পরে মোট ৯২৫৩ জন নারী-পুরুষ দুনিয়া থেকে বিদায় নিয়েছেন।

সমীক্ষায় দেখা গেছে, যেসব মানুষ নিয়মিত দিনে দু’কাপ সবুজ চা পান করেন তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি ৩৯ শতাংশ কম থাকে। আর চা পানের পরিমাণ বাড়ার সাথে সাথে মৃত্যুর থেকে দূরত্বের হারও বাড়তে থাকে। এমনকি সেটি স্ট্রোক বা হার্টের অসুখ হলেও। এ সমীক্ষায় দেখা গেছে, গ্রিন টি বা সবুজ চা এবং কফি উভয়ই হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক থেকে বাঁচতে সহায়তা করতে পারে।

-এমএসআই