নীতিমালা প্রণীত হলেও নানাভাবে নির্যাতনের শিকার গৃহশ্রমিকরা

ইসলাম টাইমস ডেস্ক:  নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, গৃহশ্রমিকদের জন্য ২০১৫ সালে একটি নীতিমালা প্রণীত হলেও তারা এখনও নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে। কিন্তু গৃহশ্রমিকদের নির্যাতন বন্ধ হয়নি। এ সময় গৃহশ্রমিকদের অধিকার, সম্মান ও মর্যাদা নিশ্চিত করতে তাদের প্রতি মানবিক হওয়ার আহ্বান জানান তারা।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে আয়োজিত ‘গৃহশ্রমিকের সুরক্ষা ও মর্যাদা নিশ্চিতকরণ এবং নির্যাতন প্রতিরোধ : বর্তমান পরিস্থিতি ও করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা এ আহ্বান জানান। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ-বিলস ‘সুনীতি প্রকল্প’ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে সভাপতিত্ব করেন বিলস ভাইস চেয়ারম্যান শিরীন আখতার এমপি।

বিজ্ঞাপন

বক্তব্য রাখেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. মুজিবুল হক, কমিটির সদস্য শামসুন্নাহার ভূঁইয়া এমপি, বিলস মহাসচিব ও নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম খান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, লেবার রাইটস জার্নালিস্ট ফোরামের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান, গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী আবুল হোসাইন।

 

মো. মুজিবুল হক এমপি বলেন, গৃহশ্রমিকদের একটি বড় অংশ শিশু। বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী শিশুদের কোন ধরনের শ্রমে নিযুক্ত করা যাবে না। যারা শিশুদের গৃহশ্রমিক হিসেবে নিয়োগ দেন তাদের ভাবতে হবে এটা ঠিক করছেন কিনা?

শামসুন্নাহার ভূঁইয়া বলেন, গৃহশ্রমিকরাও আমাদের মতই মানুষ কিন্তু তাদের সাথে অমানবিক অচরণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, গৃহশ্রমিকদের নির্যাতন বন্ধে সকলকে সচেতন হতে হবে।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, গৃহশ্রমিকরা প্রতিনিয়ত আমাদের সহযোগিতা করেন বলেই আমরা যারা বাইরে কাজ করি তা ঠিক মত করতে পারছি। ফলে তাদের প্রতি মানবিক আচরণ করতে হবে।

ইজে

বিজ্ঞাপন