প্যারালাইসিসে আক্রান্ত হয়েও একযুগ ধরে মালা গেঁথে জীবিকা নির্বাহ করছেন হিফা গাবরা

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বিভিন্ন জিনিস থেকে তৈরিকৃত মোতি দিয়ে মালা গাঁথার প্রচলন সারা পৃথিবীজুড়েই বিখ্যাত। কিন্তু সৌদি আরবে শারীরিকভাবে অক্ষম একজন মুসলিম নারী যে দক্ষতা ও নিপুণতার সঙ্গে এই শিল্পকে সমুন্নত রেখেছেন, নিঃসন্দেহে তা প্রশংসার যোগ্য।

আলআরাবিয়া ডটনেটের তথ্য অনুযায়ী, রঙ বেরঙের মোতি দিয়ে বিভিন্ন ডিজাইনের হার প্রস্তুতকারিণী সৌদি নাগরিক হিফা গাবরা ১২ বছর পূর্বে মোতির মালা তৈরি করতে শুরু করেন। এমনকি এটাই বর্তমানে তার জীবিকা উপার্জনের একমাত্র মাধ্যম।

বিজ্ঞাপন

শারীরিকভাব তার দেহের নিচের অর্ধেক বেশ কয়েক বছর পূর্বে প্যারালাইস্ট হয়ে যায়। কিন্তু এ অবস্থাতেও তিনি তার হস্তশিল্প প্রতিভাকে হারিয়ে যেতে দেননি।

হিফা গাবরা আজ থেকে ২৫ বছর পূর্বে পক্ষাঘাতগ্রস্ত হন। তবুও এসময়গুলো তিনি ‍দৃঢ়তা ও ধৈর্যর সাথে নিজ কাজে অবিচল থেকে অতিবাহিত করেন।

আলআরাবিয়ার সাথে কথা বলতে গিয়ে হিফা বলেন, আল্লাহর শোকর, তিনি আমাকে অসুস্থতা এবং অক্ষমতার মাঝেও হিম্মত দান করেছেন। আমি কখনো আমার অক্ষমতাকে আমার কাজের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধক হতে দেইনি।

তিনি বাজার থেকে বিভিন্ন পাথর এবং রঙ বেরঙের মোতি দিয়ে খুব সুন্দর হার তৈরি করা শুরু করেন। হিফা গাবরাহ হার বানানোকে অনেক বছর থেকে তার পছন্দনীয় পেশা বানানোর পাশাপাশি নিজের জীবিকা উপার্জনের মাধ্যম হিসেবেও বেছে নিয়েছেন।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, মালা গাঁথা এখন তার শুধু শখই নয়, বরং তার জীবিকা উপার্জনের মাধ্যমও বটে।

তার এ পেশার কারণে তার চোখের দৃষ্টিশক্তি লোপ পেয়ে যায়। তিনি ভালোভাবে দেখতে পান না। এটি একটি জটিল এবং সতর্কতার কাজ। এর জন্য যথেষ্ট সময়ের প্রয়োজন হয়।

তিনি বলেন, আমার গ্রাহক পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছে। তার তৈরিকৃত হার ১০০ থেকে ১০০০ রিয়াল দামে পর্যন্ত বিক্রি হয়।

আলআরাবিয়া অবলম্বনে যুবাইর বিন জাহিদ