আমেরিকায় মৃত ব্যক্তির নামে ভোট দেওয়ার অভিযোগ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক:  যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটির নির্বাচন কর্তৃপক্ষের কাছে মৃত ব্যক্তির নামে ব্যালট পাঠানো হয়েছে বলে একটি সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে। রেকর্ড পর্যালোচনা করে দেশটির সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানিয়েছে, স্টাটেন দ্বীপে বসবাসকারী নিবন্ধিত ডেমোক্র্যাট ফ্রান্সিস রেকসোর নামে এই ব্যালট পাঠানো হয়েছে। ২০১২ সালে মারা যাওয়া ওই ব্যক্তির ভোট ইতোমধ্যে বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে সংবাদমাধ্যমটি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টা থেকে দেশটিতে প্রথম ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে এবারে রেকর্ড সংখ্যক প্রায় দশ কোটি ভোটার আগাম ভোট দিয়ে ফেলেছেন। আগাম ভোটের বেশিরভাগই এসেছে ডাকযোগে।

বিজ্ঞাপন

রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ডাকযোগে ভোটের বিরোধিতা করে আসছেন। তবে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ডাক ভোট দিতে সমর্থকদের উৎসাহ জুগিয়ে আসছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন।

নিউ ইয়র্ক পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, ২০১২ সালে মারা যাওয়া ফ্রান্সিস রেকসোর নামে পাঠানো ভোট ৮ অক্টোবর সেই ভোট বৈধ হিসেবে নিবন্ধনও করে ইলেকশন বোর্ড। পরে অভিযোগ সামনে আসার পর বিষয়টি খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছে নির্বাচনি কর্তৃপক্ষ।

একইভাবে আরও একটি ভোটগ্রহণ করেছে নিউইয়র্ক সিটির ইলেকশন বোর্ড। গেরট্রুড নিজার নামের ওই ভোটার মারা গেছেন ৪ জুলাই ২০১৬ সালে। ইলেকশন বোর্ডের রেকর্ড অনুসারে, ৯ অক্টোবর ভোট দিয়েছেন গেরট্রুড এবং সেই ভোট বৈধ বলে গৃহীত হয়েছে ২৫ অক্টোবর।

মৃত ব্যক্তির নামে ভোট পাঠানোর এসব ঘটনা তদন্তের জন্য পুলিশ ও স্থানীয় কর্তৃপক্ষের কাছে প্রয়োজনীয় সব তথ্য পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রে মৃত ভোটারের নামে ভোট পড়ার ঘটনা এবারই প্রথম নয়। ভোট দেওয়ার সময় ভুলবশত মৃত ভোটারের ঘরে স্বাক্ষর দিতে গিয়ে এমনটা ঘটে থাকে বলে কর্তৃপক্ষ দাবি করে থাকে।