বিশ্বব্যাপী বিক্ষোভের মধ্যেও নোবিপ্রবির দুই হিন্দু শিক্ষার্থীর নবীজিকে নিয়ে কটূক্তির ধৃষ্টতা!

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ইউরোপের দেশ ফ্রান্সের ইসলামবিদ্বেষী অবস্থানের প্রতিবাদে উত্তাল পৃথিবী।  বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন এবং ফরাসি প্রেসিডেন্টের ইসলামের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট অবস্থানের বিরুদ্ধে আরব-অনারব, এশিয়া-ইউরোপসহ গোটা বিশ্বে আন্দোলন, বিক্ষোভ ও বয়কটের জোয়ার অব্যাহত রয়েছে। বাংলাদেশও এক্ষেত্রে সামনের সারিতে। কিন্তু এর মধ্যেই দেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়) দু’জন হিন্দু শিক্ষার্থী প্রিয়নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে কটূক্তির ধৃষ্টতা প্রদর্শন করেছে।

তারা দুইজন হলো ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থানা বিভাগের শিক্ষার্থী প্রতীক মজুমদার এবং একই শিক্ষাবর্ষের ফার্মেসী বিভাগের শিক্ষার্থী পাল দীপ্ত।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৮ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়টির রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. আবুল হোসেন ও ডেপুটি রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায়, ধৃষ্টতাকারী এই দুই শিক্ষার্থীকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কর্তৃপক্ষের আদেশক্রমে ও শৃঙ্খলাবোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এনে হযরত মুহাম্মদ (সঃ) ও  ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় অভিযুক্ত দুজন শিক্ষার্থীকে সাময়িক ভাবে বহিষ্কার এবং হলের সিট বাতিল করা হয়েছে। বাংলাদেশ সরকারের আইন মোতাবেক দণ্ডনীয় অপরাধ বিধায় এরুপ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপতিতে আরও বলা হয়, তাদেরকে কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবেনা এবং আই.সি.টি আইনে মামলা করা হবে না সে বিষয়ে আগামী ২ নভেম্বরের মধ্যে রেজিস্ট্রার বরাবর কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে দেশের এক শ্রেণির হিন্দুদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নবীজিকে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্য করার দুঃসাহস রীতিমতো লক্ষ্যনীয়। যদিও এই ঘটনাটিতে উক্ত দুই শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে, কিন্তু এধরনের প্রবণতা দেশে ধর্মীয় শান্তি, রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা ও শৃংখলার জন্য হুমকির বার্তা বহন করে।’