ফ্রান্সে মহানবী সা.-এর অবমাননার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ ইসলামী দলসমূহের

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয়ভাবে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশের ইসলামী রাজনৈতিক দলসমূহ।

আজ ২৫ অক্টোবর গণমাধ্যমে প্রেরিত পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানিয়েছেন জমিয়তে ওলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী রেজাউল করীম, খেলাফত মজলিস -এর আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের, খেলাফত যুব ও ছাত্র মজলিস, ইসলামী যুব আন্দোলনছাত্র জমিয়ত -এর নেতৃবৃন্দ।

বিজ্ঞাপন

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী বলেছেন, ফ্রান্স শুধু মুসলিম উম্মাহর হৃদয়কেই ক্ষতবিক্ষত করছে না, বরং বিশ্ব শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্যও ভয়াবহ হুমকি তৈরি করছে।

তিনি আরো বলেন, ‘নজিরবিহীনভাবে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ এই কার্টুন প্রকাশের সমালোচনা করতে অস্বীকার এবং ইসলামপন্থীদের নির্মূল করার অঙ্গিকার করেছেন। ইসলামবিদ্বেষের ঘটনায় ফ্রান্স ইউরোপের সকল দেশকে ছাড়িয়ে গেছে। ’

জাতিসংঘ’সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন এবং বিশ্বের সকল ধর্মমতের শান্তিকামী জনতার প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, বিশ্ব শান্তিকে হুমকি মুক্ত রাখতে ফ্রান্সের সাম্প্রদায়িকতার লাগাম টেনে ধরা সকলের দায়িত্ব।’

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই মন্তব্য করেছেন, ফ্রান্স সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে পুলিশ পাহারায় মুহাম্মদ সা.-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে মুসলিম উম্মাহ’র কলিজায় আঘাত করা হয়েছে ।

তিনি বলেন, ফ্রান্স সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে বিশ্বমুসলিমকে উস্কে দিয়ে বিশ্বব্যাপী অশান্তির আগুন জ্বালিয়ে দিতে চায়। ফ্রান্সের ধর্মবিরোধী এ অবমাননা বিশ্বমুসলিম নেতৃত্বকে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দিতে হবে।

পীর সাহেব বলেন, বাকস্বাধীনতার নামে ফ্রান্স ইসলাম বিরোধী চরম অসভ্য ও নোংরা খেলায় মেতে উঠেছে। ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রীও এর আগে ইসলাম ধর্ম নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য দিয়েছে। এসব উগ্র কর্মকান্ড প্রমাণ করে ফ্রান্স সরকার ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া বিশ্বের মুসলমানদের নৈতিক ও ঈমানি দায়িত্ব।

এছাড়াও আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে নিয়ে অবমাননার প্রতিবাদে ২৭ অক্টোবর, মঙ্গলবার ঢাকাস্থ ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি হাতে নিয়েছে  ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। ২৯ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার  বেলা ৩টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে বিক্ষোভ সমাবেশের আহবান জানিয়েছেন। ওইদিন সকাল ১০টায়  রাজধানীর  বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে জমায়েত অনুষ্ঠিত হবে। দূতাবাস অভিমূখে বিশাল গণমিছিলে নেতৃত্ব দিবেন আন্দোলনের আমীর হযরত পীর সাহেব চরমোনাই।

এদিকে খেলাফত মজলিস -এর আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী সা. কে অবমাননায় বিশ্ব মুসলিম চরমভাবে ব্যথিত ও ক্ষুব্ধ।

ফ্রান্সকে এহেন জঘন্য কর্মকান্ড বন্ধ করতে বাধ্য করতে হবে। ফ্রান্সকে রাষ্ট্রীয়ভাবে ক্ষমা চাইতে হবে। তা না হলে সারা দুনিয়ার মুসলমানরা রাজপথে নেমে আসবে। ইতোমধ্যেই ফ্রান্সের পণ্য বয়কট শুরু হয়েছে। এ বর্জন আরো তীব্র হবে। ইসলাম ও মহানবী সা. এর অবমাননা কোনভাবেই একজন মুসলমানের পক্ষে বরদাস্ত করা সম্ভব নয়।

একই ইস্যুতে ফ্রান্সের বর্বরতা রুখে দাড়ানোর প্রত্যয়ে ঢাকা মোহাম্মাদপুর উত্তরা, ময়মনসিংহ ও গাজীপুরে রাজপথে বিক্ষোভ করেছেন খেলাফত যুব ও ছাত্র মজলিসের নেতৃবৃন্দ।

একই ঘটনায় ফ্রান্সকে বয়কট ও কূটনীতিক সম্পর্ক ছিন্নের দাবি জানিয়েছে ইসলামী যুব আন্দোলন। রোববার (২৫ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে ইসলামী যুব আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখা।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মুফতী মানসুর আহমদ সাকী বলেন, বিশ্বনবীর অবমাননার ঘটনা অসভ্যতাকেও হার মানিয়েছে। ফ্রান্স সরকারকে এর চরম মূল্য দিতে হবে। বিশ্বের অন্যতম মুসলিম প্রধান রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ সরকারকে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সরকারকে এই ঘটনায় ফ্রান্সের প্রতি রাষ্ট্রীয় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাতে হবে।

ফ্রান্সের এমন নিকৃষ্টতম ঘটনায় আরব বিশ্বের নেতাদের নীরবতার সমালোচনা করে তারা বলেন, আরব বিশ্বের মুসলিম নামধারী শাসকরা এখন বোবা শয়তানের ভূমিকা পালন করছে। ওরা ইসলাম ও মুসলমানদের বন্ধু নয়, ইউরোপের পা চাটা গোলামে পরিণত হয়েছে।

সমাবেশ শেষে তারা মিছিল নিয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা ফ্রান্সের পতাকায় আগুন দিয়েও প্রতিবাদ জানান।

ফ্রান্সের ধারাবাহিকভাবে ইসলামবিদ্বেষী পদক্ষেপ এবং মুসলমানদের হয়রানী ও নির্যাতনের প্রতিবাদে আজ ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ রাজধানী ঢাকায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে।
ফ্রান্সে রাসূল (সা.)এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করায় ফ্রান্সের তীব্র সমালোচনা করে ছাত্র জমিয়ত নেতা নূর হোসাইন সবুজ বলেন, অভিশপ্ত ফ্রান্সের কয়েকটি সরকারী ভবনে রাসূল (সা.)এর কার্টুন প্রদর্শন করে রক্তাক্ত করা হচ্ছে দুইশত কোটি মুসলিম উম্মাহ’র হৃদয়।
ছাত্র জমিয়ত বাংলাদেশ ভাটারা থানা সাধারণ সম্পাদক নাহিদুল ইসলাম বলেন, ফ্রান্সের জ্বলে উঠা দাবানলে আমি স্পষ্ট তাদের ধ্বংসলীলা দেখতে পাচ্ছি। রোম-পারস্যের দাম্ভিকের প্রাচীরগুলোর মতো আইফেল টাওয়ারে ধ্বস নামবে, ইনশাআল্লাহ।