মসজিদে বিস্ফোরণে মৃত বেড়ে ২৪, আশংকাজনক ১৩ জন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লা জামে মসজিদে হৃদয়বিদারক বিস্ফোরণে চিকিৎসাধীন ৫-৬ জনের অবস্থা এখনও আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তবে চিকিৎসক জানিয়েছেন, ১৩ জনের অবস্থা সংকটাপন্ন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বিস্ফোরণের পর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ৩৭ জনকে আনা হয়েছিল। দুর্ভাগ্যজনক এর মধ্যে ২৪ জন মারা গেছেন। বাকিদের মধ্যে ৫-৬ জনের শ্বাসনালি পুড়ে গেছে। তারা আইসিইউতে আছেন। প্রধানমন্ত্রী তাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ রাখছেন এবং পরামর্শ দিচ্ছেন।’

বিজ্ঞাপন

রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে দগ্ধদের দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

হতাহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এ বিষয়ে পরে আলাপ হবে, এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘অবহেলাজনিত মৃত্যুতে এ ব্যাপারে ফতুল্লা থানায় একটি মামলা হয়েছে। তিনটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ সময় দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী এনাম হোসেন বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা এবং মরদেহ সৎকারের জন্য ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে।’

ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আন্তঃমন্ত্রণালয়ের দুর্যোগবিষয়ক কমিটির একটা সভা হবে, সেখানে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ নিয়ে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।’

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) এশার নামাজের সময় নারায়ণগঞ্জের তল্লা বায়তুল সালাহ জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণে দগ্ধ ৩৭ জন মুসল্লিকে ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ পর্যন্ত ২৪ জন মারা গেছেন। বাকিরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে ৫-৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আরো পড়ুন: ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন: বাণী ও বার্তা, মর্ম ও মর্যাদা

বালা ও মুসীবত : সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি ও কর্মপন্থা

তিতাসের বিরুদ্ধে অভিযোগ: “আমরা নামাজে এলেই গ্যাসের গন্ধ পেতাম”

জীবন তাঁর দান, মৃত্যুও তাঁরই বিধান