লাখো মানুষের উপস্থিতিতে ধামতীর পীরের জানাযা ও দাফন সম্পন্ন

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী ধামতী দরবারের পীর এবং ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, উস্তাজুল ওলামা মাওলানা আবদুল হালিমের জানাযা ও দাফন লাখো মানুষের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হয়েছে।

আজ (৩ সেপ্টেম্বর) বাদ জোহর ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসা ময়দানে নামাযে জানাযার পর মাদরাসা সংলগ্ন কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

দেশবরেণ্য এ আলেমের জানাযার ইমামতি করেন তার জামাতা ঢাকা তেজগাঁওয়ের রহিম মেটাল জামে মসজিদের খতিব ও ইসলামিক কালচারাল ফোরামের চেয়ারম্যান মাওলানা মাহমুদুল হাসান মমতাজী।

বিজ্ঞাপন

পীর সাহেবের জানাযায় অংশ নিতে ভোররাত থেকেই জনতার ঢল নামে ধামতী মাদরাসা ময়দানে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে মাদরাসা ময়দান ছাপিয়ে ভীড় উপচে পড়ে আশেপাশের এলাকায়। স্থানীয় লোকজন ছাড়াও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন দেশের প্রখ্যাত পীর মাশায়েখ, শিক্ষাবিদ, আলেম, মাদরাসার সাবেক শিক্ষার্থী, হুজুরের ভক্ত ও গুণগ্রাহী এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

জানাযা পূর্ব বক্তব্যে বক্তারা বলেন, মাওলানা আবদুল হালিম রহ. ছিলেন আদর্শ মানুষ গড়ার সুনিপুণ কারিগর। সুন্নাতে নববীর অনুসরণে কোন রকম আপোস করেননি। তাকওয়াকে জীবনের শ্রেষ্ঠ অবলম্বন বানিয়েছেন। আজীবন দ্বীনের ওপর অটল থেকে মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক ও পড়ালেখার উন্নতির জন্য অবিরাম পরিশ্রম করেছেন।

আড়াইবাড়ী দরবারের পীর মাওলানা গোলাম সরোয়ার সাঈদীর পরিচালনায় জানাযার আগে পীর সাহেব হুজুরের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন, হুজুরের জামাতা ছারছিনা দরবারের পীর শাহ সাইফুল্লাহ সিদ্দিকী, ছারছিনা দরবারের ছোট পীর শাহ আরিফ বিল্লাহ সিদ্দিকী, নাগাইশ দরবারের পীর মাওলানা মুশতাক ফয়েজী, ঢাকা মিছবাহুল উলুম কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা শাহজাহান মাদানী, হাজীগঞ্জ আহমদিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ড. হিফজুর রহমান, প্রখ্যাত মুফাসসিরে কোরআন মাওলানা ড. আবুল কালাম আজাদ বাশার, মাওলানা সাদিকুর রহমান আল আযহারী, মুফতি আমীমুল ইহসান, ঢাকার মাইলস্টোন কলেজের সহকারী অধ্যাপক মাওলানা মুহাম্মদ ছফিউল্লাহ হাশেমী ও মোল্লা নাজিম উদ্দীন প্রমুখ।

জানাযার পূর্বে ধামতী দরবার পরিচালনার জন্য মরহুম পীর সাহেবের দুই দৌহিত্র মাওলানা শাহ আহমাদ হাসান সিদ্দীকি ও মাওলানা বাহাউদ্দিনের নাম ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার দুপুর ৩টায় নিজ বাড়িতে ধামতীর পীর মাওলানা আবদুল হালিম (রহ.) ইন্তিকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

তিনি প্রায় ৩০ বছর ঐতিহ্যবাহী ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং মৃত্যুকাল পর্যন্ত ধামতী দরবারের পীর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।