লেবাননে বিস্ফোরণে আহত বিবাড়িয়ার জামালের মৃত্যু

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: জীবিকার টানে ও পরিবারের ঋণ পরিশোধ করতে লেবাননে পাড়ি জমিয়েছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার যুবক আবু জামাল (২৫)। সম্প্রতি লেবাননে বিস্ফোরণে আহত এই যুবক ২১ দিনের মাথায় মারা গেলেন।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় বেলা তিনটার দিকে লেবাননের একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। আবু জামাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার বিদ্যাকুট ইউনিয়নের বিদ্যাকুট গ্রামের দুধ মিয়ার ছেলে। চার ভাই ও তিন বোনের মধ্যে জামাল চতুর্থ ও ভাইদের মধ্যে তৃতীয়।

বিজ্ঞাপন

বিদ্যাকুট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক বলেন, লেবাননের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জামালের মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তিনি নিশ্চিত হয়েছেন।

পরিবার জানায়, ২০১৮ সালে সাড়ে চার লাখ টাকা খরচ করে লেবাননে পাড়ি জমান জামাল। সুদের ওপর ৩ লাখ টাকা ঋণ, ১৫ শতক জায়গা বন্ধক ও বড় বোনের স্বামীর কাছ থেকে ১ লাখ টাকা ধার করে লেবাননে যান তিনি। লেবাননের বৈরুত বন্দরসংলগ্ন ঝিমাইজি এলাকায় একটি পিৎজা শপে কাজ করতেন জামাল। ৪ আগস্ট বৈরুত বন্দরের পিৎজা শপে কাজ করছিলেন তিনি। বৈরুত বন্দরে শক্তিশালী বিস্ফোরণে জামালের কর্মস্থল পিৎজা শপ সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সে সময় জামাল গুরুতর আহত হন। পরে তাঁকে উদ্ধার করে দেশটির একটি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়। প্রথম দিন জামালের মাথা থেকে কাচের টুকরা বের করে ব্যবস্থাপত্র দেওয়া হয়। একপর্যায়ে একটু সুস্থ হয়ে তিনি পরিবারের লোকজনের সঙ্গে মুঠোফোনে চারবার কথা বলেছিলেন। এরপর অস্ত্রোপচার করে তাঁকে আইসিইউতে রাখা হয়। সেখানে ২১ দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর তিনি মারা যান।

 

নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাসুম  বলেন, বিষয়টি তাঁর জানা নেই। স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছ থেকে খোঁজ নেওয়া হবে। খোঁজ নিয়ে জেলার প্রবাসীকল্যাণ শাখার মাধ্যমে তাঁর লাশ দেশে দ্রুত আনার ব্যবস্থা করা হবে।

প্রসঙ্গত, ৪ আগস্ট লেবাননের রাজধানী বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে কয়েকজন ছিলেন বাংলাদেশি।

বিজ্ঞাপন