মধ্য আগস্টে কওমী মাদরাসা খোলার আভাস, এখনো স্পষ্ট কিছু বলছেন না বেফাক কর্মকর্তারা

ঢাকার মোহাম্মদপুরে জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা। ছবি: সংগৃহীত

নুরুদ্দীন তাসলিম।।

হেফজ বিভাগের ছাত্রদের পড়াশোনার ক্ষতি বিবেচনায় দেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমদের আবেদনের প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্যবিধিসহ ৪ নির্দেশনা দিয়ে  গত ১২ জুলাই সরকারের পক্ষ থেকে খুলে দেওয়া হয় হেফজ বিভাগগুলো।

বিজ্ঞাপন

আজ ১৩ আগস্ট থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত ভর্তি কার্যক্রম চালুর ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে হাটহাজারি মাদরাসা। সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে মাদরাসা খোলার আভাস পাওয়া গেছে। জাতীয় দ্বীনি মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের সহ-সভাপতি মাওলানা ইয়াহয়া মাহমুদ তার ফেসবুক পেজে এক লাইভে শিগগিরই কওমী মাদরাসার কিতাব বিভাগ খুলতে পারে বলে জানিয়েছেন।

হাটহাজারী মাদরাসার ভর্তি কার্যক্রম, সামাজিক মাধ্যমে বিভিন্ন মাদরাসা খোলার ঘোষণা শিগগিরই কওমী মাদরাসার কিতাব বিভাগ খোলার কোন আভাস দিচ্ছে কিনা জানতে ইসলাম টাইমসের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছিল বেফাকুল মাদারিসের কর্মকর্তাদের সাথে। সামাজিক মাধ্যম ও হাটহাজারী মাদরাসার ভর্তি কার্যক্রমে আগস্টেই মাদরাসা খোলার কিছুটা আভাস থাকলেও এব্যাপারে এখনো স্পষ্ট কিছু বলছেন না বেফাকের কর্মকর্তারা।

ইসলাম টাইমসকে বেফাকের সহ-সভাপতি মাওলানা বাহাউদ্দীন যাকারিয়া বলেছেন, করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ার কারণে ছাত্রদের পড়াশোনার ক্ষতির দিক বিবেচনা করে অনেক আগে থেকেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাদরাসা খোলার ব্যাপারে সরকারের সাথে যোগাযোগ করছেন বেফাকের কর্মকর্তারা। এক্ষেত্রে সবার সম্মিলিত চেষ্টায় ১২ জুলাই থেকে হেফজ বিভাগ খোলার অনুমতি পেলেও কিতাব বিভাগের ক্ষেত্রে এখনো কোন অনুমতি পাওয়া যায়নি। তবে কিতাব বিভাগ খোলার অনুমতি পেতে এখনো বেফাকের পক্ষ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এই সময় হঠাৎ ভর্তি কার্যক্রম চালু করা নিয়ে হাটহাজারী মাদরাসার প্রজ্ঞাপন জারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মাদরাসাগুলোর ভর্তি কার্যক্রম চালুর ব্যাপারে রমজানের পরই অনুমতি দেওয়া হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে। তখন ভর্তি কার্যক্রম চালু না করায় নিজেদের সুবিধাজনক সময়ে ভর্তির কাজ চালু করেছে হাটহাজারী মাদরাসা। এটা হাটহাজারী মাদরাসার একান্ত ব্যক্তিগত বিষয় বলে জানান বেফাকের এই সহ-সভাপতি।

মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ঘোষণা না আসা পর্যন্ত এব্যাপারে কিছু বলতে চাইছেন না বেফাকের কর্মকর্তারা।

গত ৮আগস্ট দেশের কওমী মাদরাসার কিতাব বিভাগগুলো খোলার ঘোষণা দিয়েছিল সম্মিলিত কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড আল হাইআতুল উলয়া। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে ৩১শে আগস্ট পর্যন্ত দেশের সবধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হলে পরিস্থিতি বিবেচনায় সেই সিদ্ধান্ত স্থগিত করে আল হাইআতুল উলয়া।

প্রসঙ্গত, করোনা পরিস্থিতিতে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ছুটি ঘোষণা হয়েছিল ১৭ মার্চ। কয়েক দফায় ছুটি বেড়ে সর্বশেষ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধের সময়সীমা বেড়েছে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত।

বিজ্ঞাপন