বাবরি মসজিদের স্থানে রামমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর: দেশ ও জাতির উদ্দেশে যা বললেন ভারতীয় মুসলিম নেতৃবৃন্দ

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: গতকাল ৫ আগস্ট অযোধ্যার ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদের স্থানে রামমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ পুরো সময়ে ভারতের মুসলমানগণ শান্তিপূর্ণভাবে সর্বোচ্চ ধৈর্যর পরিচয় দিয়েছেন। নিজ দেশের আদালত ও আইনের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান বজায় রেখেছেন। এ কঠিন পরিস্থিতিতে দেশ ও জাতির প্রতি ভারতের মুসলিম নেতৃবৃন্দ আজ এক দিক-নির্দেশনামূলক বিবৃতি প্রদান করেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, এটা ভারতের বিচার ব্যাবস্থার জন্য দুর্ভাগ্য যে, আদালত একদিকে সাক্ষ্য-প্রমাণ দিয়েছে মসজিদের পক্ষে; কিন্তু রায় দিয়েছে মন্দিরের পক্ষে। গোটা দেশসহ সারা বিশ্বের ইনসাফপ্রিয় জনগণ এবং প্রতিষ্ঠানসমূহ এ অনাচারকে শুধু উপলব্ধিই করেননি; বরং এ পদক্ষেপের কঠোর সমালোচনাও করেছেন। আমরাও এ সিদ্ধান্তের প্রতি নিজেদের ভিন্নমত ব্যক্ত করছি। এই সিদ্ধান্ত দেশ ও জাতির জন্য এমন এক ক্ষত, যা কখনো শুকাবার নয়।

বিজ্ঞাপন

অপরদিকে আরো পরিতাপের বিষয় হলো, ভারতের সংবিধানের ওপর শপথগ্রহণকারী গণতান্ত্রিক ও ধর্মনিরপেক্ষ দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রীও মন্দিরের শিলান্যাস-ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন। এ কাজে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমগুলোও ব্যবহার করা হচ্ছে জোরোশোরে। আমরা মনে করি, এ ধরনের আচরণ ভারতের সংবিধান এবং দেশের ধর্মনিরপেক্ষ নীতির সুস্পষ্ট লংঘন। এর মাধ্যমে সামাজিক বিরোধকে আরো উস্কে দেওয়া হয়েছে।

এহেন পরিস্থিতিতে আমরা জাতির উদ্দেশ্যে বলব, অতীতে আপনারা যেরূপ ধৈর্য, সহনশীলতা এবং বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিয়েছিলেন, তার প্রতি অবিচল থাকুন। আমাদের অবস্থান যা অতীতে ছিল, তা ভবিষ্যতেও থাকবে। বাবরি মসজিদ মসজিদ ছিল এবং থাকবে। ইনশাআল্লাহ আমরা মানুষের বিবেকের দরজায় করাঘাত করে যাব। ততদিন পর্যন্ত করাঘাত করে যাব, যতদিন দেশের শান্তি-শৃংখলার কলঙ্ক ধুয়ে না যায়। আমাদের প্রত্যাশা, দেশের বিবেকবান শ্রেণি দেশের ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থানের বিরুদ্ধাচরণের এ পদক্ষেপ ভুলে যাবে না।

বিবৃতি প্রদানকারীগণ: 

মাওলানা মুহাম্মাদ ওলী রাহমানী, জেনারেল সেক্রেটারি, অলইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড

জনাব সাইয়েদ সাদাতুল্লাহ হোসাইনী, আমীর, জামায়াতে ইসলামী হিন্দ

মাওলানা তাওকীর রেযা, সভাপতি, মুসলিম ইত্তেহাদ পরিষদ বেরেলি

জনাব নওয়েদ হামিদ, সভাপতি, অলইন্ডিয়া মুসলিম মজলিসে মুশাওয়ারাত

ড. মুফতী মুহাম্মাদ মুকাররম, শাহী ইমাম, ফতেহপুরী মসজিদ দিল্লি

ড. যফরুল ইসলাম খান, সাবেক চেয়ারম্যান, সংখ্যালঘু কমিশন দিল্লি

ড. মুহাম্মাদ মনজুরে আলম, জেনারেল সেক্রেটারি, অলইন্ডিয়া মিল্লি কাউন্সিল

ড. কাসেম রসূল ইলয়াস, সভাপতি, ওয়েলফার পার্টি অব ইন্ডিয়া

মাওলানা খলীলুর রহমান সাজ্জাদ নোমানী, গদীনাশীন খানকায়ে নোমানী, নেরাল, মহারাষ্ট্র

মাওলানা জলিল হায়দার, সভাপতি অলইন্ডিয়া শিয়া কাউন্সিল

মুফতী আবদুর রাযযাক, সভাপতি, জমিয়তে ওলামায়ে হিন্দ, দিল্লি

মাওলানা সালমান হোসাইনী নদভী, নাযেমে জামিয়া সাইয়েদ আহমদ শহীদ, মালিহাবাদ, লখনৌ

জনাব আবদুস সালাম, চেয়ারম্যান, পিএফআই

জনাব এম কে ফয়জী, সভাপতি এসডিপিআই

ড. তাসলীম রহমানী, সভাপতি, এমবিসিআই

মাওলানা পীর সাইয়েদ তানভীর আহমদ হাশেমী, গদীনাশীন, খানকায়ে হাশেমিয়া, বিজাপুর, কর্নাকট

মাওলানা শাব্বির আহমদ নদভী, নাযেমে জামিআতুস সালিহাত, ব্যাঙ্গালোর

মিল্লাত টাইমস

আরো পড়ুন: বাবরি মসজিদ চিরকাল মসজিদই থাকবে, মিথ্যা ও জুলুমের ইমারত কোনোদিন স্থায়ী হয় না: মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড

বাবরি মসজিদের নিচে রামমন্দিরের কোনো অস্তিত্ব নেই

শহীদ বাবরি মসজিদ: মুসলিম হৃদয়ে রক্তক্ষরণের নতুন প্রতীক

বাবর ও বাবরি মসজিদ: হিন্দু ঐতিহাসিকদের কলমে