আয়া সোফিয়া নিয়ে আদালতের রায়ে আপত্তি তোলা তুর্কি সার্বভৌমত্বের ওপর আক্রমণ: এরদোগান

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তর নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের নিন্দাকে পাত্তা দিলেন না তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোয়ান। শুক্রবার সেখানে আনুষ্ঠানিকভাবে নামাজের ঘোষণা দেন তিনি। এরদোগান বলেন, আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোনো আপত্তি আমাদের সার্বভৌমত্ত্বকে লঙ্ঘন হিসেবেই ধরা হবে। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, যারা নিজেদের দেশে ইসলাম বিদ্বেষের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয় না, তারাই তুরস্কের সার্বভৌম অধিকার ও ইচ্ছার ওপর আক্রমণ করে।

শুক্রবার আদালতের রায়ের পর আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরের ঘোষণা দেন এরদোয়ান। তুরস্কের এই সিদ্ধান্তে আন্তর্জাতিক মহলে বিতর্কের ঝড় উঠে।

বিজ্ঞাপন

আরো পড়ুন: আন্তর্জাতিক নয়, আয়া সোফিয়া তুরস্কের জাতীয় সার্বভৌমত্বের বিষয়: তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এ নিয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় লাইভ ব্রডকাস্টে শনিবার এরদোয়ান বলেন, জাদুঘর থেকে আয়া সোফিয়াকে মসজিদে রুপান্তর করার সিন্ধান্ত তার দেশের ‘সার্বভৌমত্ব অধিকার’ ব্যবহার করার ইচ্ছা প্রতিনিধিত্ব করে।

তিনি বলেন, অন্য সব মসজিদের মতো এখন থেকে আয়া সোফিয়ার দরজাও (মুসল্লিদের জন্য) খোলা। তুরস্কের সকল নাগরিক ও পর্যটকদের জন্যও এটি উন্মুক্ত। নীল মসজিদের মতো সব ধর্মের মানুষই এখানে আসতে পারবে। তবে আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কোনো আপত্তি আমাদের সার্বভৌমত্ত্বকে লঙ্ঘন হিসেবেই ধরা হবে।

আরো পড়ুন: কামাল আতা তুর্ক: আয়া সোফিয়াকে যে বিতর্কিত ব্যক্তি জাদুঘর বানিয়েছিল

এরদোয়ান বলেন, ইতিহাস স্বাক্ষী আছে পুরো দেশে সব জায়গায় সহিষ্ণুতা আনতে আমরা কী রকম সংগ্রাম করেছি। আজ ৪৩৫টি গির্জা ও সিনাগগ প্রার্থনার জন্য উন্মুক্ত আছে। এরপরেও নানা জায়গায় (আয়া সোফিয়া নিয়ে) বিতর্ক দেখছি।

এদিন সন্ধ্যার পর তিনি ভাষণ দেয়ার সময় একদল মুসল্লি হায়া সোফিয়ার বাইরের চত্ত্বরে মগরিবের জামাত আদায় করছিল।

এরদোয়ান জানান, আয়া সোফিয়াকে পুরোপুরি মসজিদের জন্য প্রস্তুত করতে ছয় মাস লেগে যেতে পারে। এর জন্য অপেক্ষা করে না  সেখানে নামাজের জন্য ছুটে যেতে আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন