আন্তর্জাতিক নয়, আয়া সোফিয়া তুরস্কের জাতীয় সার্বভৌমত্বের বিষয়: তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: তুরস্কের প্রেসিডেন্ট আয়া সোফিয়াকে মসজদে রুপান্তরের এক যুগান্তরকারী সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। আদালতের রায়ে এটি নামাজের জন্য উন্মুক্ত করা হবে আগামী ২৪ জুলাই থেকে।

আয়া সোফিয়া নিয়ে অন্যদের উদ্দেশ্যে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুট কাভুসোগলু বৃহস্পতিবার বলেন, আয়া সোফিয়া মুলত কোনো আন্তর্জাতিক বিষয় নয়, এটি তুরস্কের জাতীয় সার্বভৌমত্বের বিষয়। এছাড়া তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশের সাংস্কৃতি ও সম্পদের মতো আয়া সোফিয়াও তুরস্কের সম্পত্তি।

বিজ্ঞাপন

তবে এ বিষয়ে তুরস্ক কর্তৃপক্ষ অন্যদের উদ্দেশ্যে জানিয়েছে, আয়া সোফিয়ার ব্যবহার পরিবর্তন হলেও স্থাপনার বৈশিষ্ট্য সুরক্ষিত থাকবে। এই নীল মসজিদটি একইভাবে জনসাধারণের জন্য এবং সকল সম্প্রদায়ের দর্শনার্থী ও পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

আরো পড়ুন: বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের বিখ্যাত দুই মনীষীর কলমে আয়া সোফিয়ার অশ্রুভেজা স্মৃতি

তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, আয়া সোফিয়া নামাজের জন্য উন্মুক্ত হওয়ায় এটি তার পরিচয় থেকে বঞ্চিত হবে না।

কালিন আরো বলেন, তুরস্ক এখনো খ্রিস্টানদের ভাবমূর্তি সংরক্ষণ করবে। ঠিক যেমন আমাদের পূর্বপুরুষরা সকল খ্রিস্টানদের মূল্যবোধ সংরক্ষণ করেছেন।

আরো পড়ুন: আয়া সোফিয়া মসজিদ নিয়ে শুরু হল পশ্চিমাদের গা জ্বলুনি

আয়া সোফিয়ার বহুমুখী সমৃদ্ধ অতীত নিয়ে তুরস্ককে নানা প্রশ্নের সম্মূখীন হতে হয়েছে। খ্রিস্টান ধর্মালম্বীদের কাছে এটি গির্জা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ১৪৫৩ সালে  দ্বিতীয় মেহমেদ ফাতিহ তুরস্ক বিজয়ের পরে প্রাচীন ক্যাথেড্রাল একে সংরক্ষণ ও পুনরুদ্ধার করেন।

সূত্রঃ টিআরটি ওয়ার্ল্ড

 

বিজ্ঞাপন