শাহ সাহেবের ওফাতের পর কীভাবে চলছে জামিয়া ইমদাদিয়া এবং শহিদী মসজিদ

773

ওলিউর রহমান ।।

পাঁচদিন হয়ে গেল, ইন্তিকাল করেছেন দেশের সর্বজনমান্যেয় ও বরিত ব্যক্তিত্ব, শীর্ষস্থানীয় আলেমেদ্বীন আল্লামা আযহার আলী আনোয়ার শাহ। গত ২৯ জানুয়ারি বুধবার বিকালে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর ইন্তিকাল হয়।

আল্লামা আনোয়ার শাহ রহ. দেশের জাতীয় এবং কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও পরীক্ষা বোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে নিয়োজিত ছিলেন। তিনি ছিলেন, কওমি মাদরাসার সর্বোচ্চ অথরিটি আল হাইআতুল উলয়ার অন্যতম সদস্য, বেফাকুল মাদারিসের সিনিয়র সহ সভাপতি, কিশোরগঞ্জের তানযিমুল মাদারিসের সদর এবং জামিয়া ইমদাদিয়ার কয়েক যুগের মহা পরিচালক ও ঐতিহ্যবাহী শহিদী মসজিদের সম্মানিত খতিব।

শাহ সাহেব রহ.-এর ওফাতের পর প্রশ্ন দেখা দিয়েছে, কীভাবে চলছে জামিয়া ইমদাদিয়া এবং শহিদী মসজিদ? কে হয়েছেন তাঁর স্থলাভিষিক্ত?

জামিয়া ইমদাদিয়ার মুহাদ্দিস মুফতি ওমর আহমদের সাথে এ ব্যাপারে কথা বললে তিনি ইসলাম টাইমসকে জানান, শাহ সাহেবের ইন্তিকালের পর প্রথম জুমআর নামায পড়িয়েছেন, জামিয়ার সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা এমদাদুল্লাহ। হুযুরের অসুস্থতার পর তিনিই নিয়মিত জুমআ পড়াচ্ছেন। তবে চূড়ান্তরূপে এখনও কাউকে খতিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়নি জানিয়ে মুফতি ওমর আহমদ বলেন, আগামী শুক্রবারের মধ্যে হয়ত ঠিক করা হতে পারে কে হচ্ছেন ঐতিহাসিক শহিদী মসজিদের পরবর্তী খতিব।

জামিয়া ইমদাদিয়া পরিচালনার দায়িত্বে এখন কে আছেন? জানতে চাইলে মুফতি ওমর আহমদ বলেন, শাহ সাহেব হুজুরের ছোট ভাই মাওলানা শাব্বীর আহমদ রশিদ আপাতত ভারপ্রাপ্ত পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। হুজুরের ওফাতের দিনই মজলিসে আমেলার তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে মাওলানা শাব্বীর আহমদ রশিদকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

‘তবে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার জামিয়ার মজলিসে আমেলার গুরুত্বপূর্ণ মিটিং-এ কাউকে পরিপূর্ণভাবে মাদরাসা পরিচালনার দায়িত্ব দেওয়া হবে।’ যোগ করেন মুফতি ওমর আহমদ।

মুফতি ওমর আহমদ বলেন, জামিয়া ইমদাদিয়ার সদ্যপ্রয়াত শায়খুল হাদিস আল্লামা আনোয়ার শাহ প্রতিবছরই বুখারি শরিফের উল্লেখযোগ্য অংশ পড়াতেন। এ বছর অসুস্থতার কারণে বেশি পড়াতে পারেননি। ইন্তিকালের পর হুযুরের জন্য নির্ধারিত অংশ পড়ানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জামিয়ার সিনিয়র মুহাদ্দিসদের।