এক সন্তান নীতির কুফল : নিন্মমুখী জন্মহার  চীনের অর্থনীতির জন্য মারাত্মক হুমকি

72

ইসলাম টাইমস ডেস্ক :  চীনে সাত দশকের মধ্যে জন্মহার সবচেয়ে কমেছে। এই হার ক্রমেই কমে আসার কারণে দেশটি আগের ‘এক সন্তান নীতি’ থেকে সরে এলেও তার কোন পরিবর্তন হয়নি। নিন্মমুখী জন্মহার  দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির এই দেশটির জন্য ভবিষ্যতে মারাত্মক হুমকি হয়ে দাঁড়াবে। গতকাল সেখানকার জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো এ তথ্য জানিয়েছে।

জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো বলেছে, ২০১৯ সালে চীনে প্রতি হাজারে শিশু জন্মের হার ছিল ১০ দশমিক ৪৮। ১৯৪৯ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী চীন গঠনের পর এটিই সবচেয়ে কম জন্মহার। দেশটিতে গত বছরে যে শিশুর জন্ম হয়েছিল, তা আগের বছরের চেয়ে ৫ লাখ ৮০ হাজার কম ছিল। আগের বছরে অর্থাত্ ২০১৮ সালে মোট ১ কোটি ৪৬ লাখ ৫০ হাজার শিশুর জন্ম হয়েছিল।

পরিসংখ্যানে বলা হয়েছে, যেভাবে দেশটিতে জন্মহার কমে আসছে তা দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির এই দেশটির জন্য ভবিষ্যতে মারাত্মক হুমকি হয়ে দাঁড়াবে। শুধু জন্মহারই যে কমছে তা নয়, এর সঙ্গে মৃত্যুহারও কমছে। এর ফলে চীনের জনসংখ্যা ১৩৯ কোটি থেকে গত বছর ১৪০ কোটিতে দাঁড়িয়েছে। এ কারণে দেশটির কর্মক্ষম জনগোষ্ঠীর সংখ্যা কমছে, বাড়ছে অবসরভোগীদের সংখ্যা।

জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে ১৯৭৯ সালে চীন এক সন্তান নীতি গ্রহণ করে। এই নীতির ফলে জনসংখ্যা কমলেও লিঙ্গ অসমতা দেখা দেয়। ২০১৯ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশটিতে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা ৩ কোটি বেশি। জন্মহার হ্রাসের কারণে ২০১৫ সালে কমিউনিস্ট সরকার দুই সন্তান নীতিতে সরে আসে। তবে পড়াশোনা, আবাসন ও চিকিত্সা ব্যয়ের কারণে অধিকাংশ পরিবারের কাছে এটি প্রত্যাখ্যাত হয়।