আমি নারী শিক্ষার বিপক্ষে নই, সহশিক্ষার বিপক্ষে: আল্লামা আহমদ শফী

145

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: আমি নারী শিক্ষার বিপক্ষে নই, সহশিক্ষার বিপক্ষে বলে জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির ও আল-জামিআতুল আহলিয়া দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক আল্লামা শাহ আহমদ শফী।

আজ (১৭ জানুয়ারি) শুক্রবার বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে চট্টগ্রামের রাউজান গহিরা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আজ মেয়েরা বোরকা পরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যায় না। তারা বোরকা ছিঁড়ে ফেলে। এত বড় গুনাহ যে দেশে চলছে সে দেশে অশান্তি না এসে কি শান্তি আসবে?!! অথচ আপনারা এগুলো নিয়ে কিছু বলছেন না।

পত্র-পত্রিকার উদ্ধৃতি দিয়ে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের এই আমির বলেন, বর্তমান স্কুল-কলেজে ছাত্র-ছাত্রীরা তো অবৈধ শারীরিক সম্পর্কে জড়ায়ই। মাস্টাররাও ছাত্রীদের সঙ্গে কুকর্মে জড়িয়ে পড়ছেন।

তিনি বলেন, সহশিক্ষায় মেয়েদের পোশাকও অনেকটা ছেলেদের মতো। সেখানে ছেলে-মেয়ে বন্ধুত্ব করছে, ঘোরাফেরা করছে- আরও কত কি করছে, তা আমার আর বলার দরকার নেই।

আল্লামা শাহ আহমদ শফী আরও বলেন, সহশিক্ষার মাধ্যমে দেশে যে অনেক গুনাহ হচ্ছে, মহান আল্লাহ’র নাফরমানি হচ্ছে-আমি শুধু এই কথাই বলেছি। অথচ পত্রিকায় আমার নামে অন্যটা লিখে বদনামি করা হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীকে লক্ষ করে তিনি বলেন, তুমি যেভাবে লেখাপড়া করেছো সেভাবে আমাদের মেয়েদের, মহিলাদেরও লেখাপড়া করার জন্য আদেশ দাও। আমি মহিলাদের শিক্ষিত হওয়ার জন্য বাধা দিচ্ছি না। আমি শুধু সহশিক্ষার বিপক্ষে বলছি।

আল্লামা শফী আরও বলেন, ‘এখন তো রাস্তাঘাটে একজন মহিলা, একজন পুরুষ, একজন মহিলা, একজন পুরুষ-কেমন? এরা চোখের জেনা করে। চলাফেরা করে। এখন স্কুল-কলেজে জেনার বাজার।’

তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান মুফাচ্ছির ছিলেন মাওলানা মুফতি নজরুল ইসলাম কাসেমী। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন মাওলানা ফরিদ উদ্দীন আল-মোবারক।

এতে আরও বক্তব্য দেন মাওলানা আজিজুল ইসলাম জালালী, মাওলানা মুফতি মেরাজুল হক মাজহারী, মুফতি নুরুল আমিন ফরিদী, মাওলানা ইসমাঈল খান, মাওলানা মোস্তাফা নূরী, গাজী মাওলানা ছানাউল্লাহ, মাওলানা হারুন আজিজী নদভী প্রমুখ।