‘পড়াশোনা ঠিক রেখে শিক্ষার্থীদের লেখালেখি চর্চা করতে হবে’

113

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের উদ্যোগে ময়মনসিংহের জামিয়া আরাবিয়া মাখযানুল উলূমে তরুণদের জন্য লেখালেখির বুনিয়াদি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটা থেকে শুরু হয়ে কর্মশালা চলে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত। সদ্য প্রকাশিত মাওলানা মনজুরুল হক রহ. স্মারকগ্রন্থের পাঠ-আলোচনাও অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইত্তেফাকুল উলামা ময়মনসিংহের সভাপতি এবং জামিয়া আরাবিয়া মাখযানুল উলূমের মুহতামিম মাওলানা আব্দুর রাহমান হাফিজ্জী। প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন ইসলাম টাইমসের সম্পাদক মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন মাখযানুল উলূমের নায়েবে মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মদ। পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মাদরাসার শিক্ষক ও লেখক মাওলানা আবদুল্লাহ মোকাররম।

পত্রিকায় লেখালেখি বিষয়ে বার্তা২৪ ডটকমের বিভাগীয় সম্পাদক মুফতি এনায়েতুল্লাহ; কী লেখক কীভাবে লেখব বিষয়ে বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর; কী পড়ব, কীভাবে পড়ব বিষয়ে আওয়ার ইসলাম সম্পাদক হুমায়ুন আইয়ুব এবং লেখালেখির ভুলত্রুটি ও ছড়া-কবিতা বিষয়ে আলোচনা করেন বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মুনীরুল ইসলাম।

এছাড়া লেখক মাওলানা আমির ইবনে আহমদ, মাহমুদুল হক সিদ্দীক, মিযানুর রহমান জামীল প্রমুখ বক্তব্য দেন। আরও উপস্থিত ছিলেন ক্যালিগ্রাফার ইলয়াস হোসাইন, অনুসন্ধান ডটকমের সম্পাদক মাহফুজুর রহমান হোসাইনীসহ মাখযানুল উলূমের শিক্ষক এবং স্থানীয় লেখক-সাহিত্যিকরা।

সভাপতির বক্তব্যে দেশের অন্যতম শীর্ষ আলেম মাওলানা আবদুর রাহমান হাফিজ্জী বলেন, প্রত্যেকে বিষয়েই দক্ষ কিছু লোক থাকা চাই। লেখালেখির অঙ্গনেও এ ধরনের লোক প্রয়োজন। আর লেখক হয়ে উঠার জন্য মূল প্রস্তুতির সময় ছাত্রজীবন। শিক্ষার্থীদেরকে পড়াশোনা ঠিক রেখে লেখালেখি অনুশীলনের প্রতি উদ্বুদ্ধ করেন প্রবীণ এই আলেম।

প্রধান আলোচকের বক্তৃতায় মাওলানা শরীফ মুহাম্মদ বলেন, শিক্ষার্থীদের শিল্প-সাহিত্য চর্চা করতে হবে, তবে নিজের আদর্শকে বিলিয়ে নয়। যে তালিবুল ইলম লেখালেখি চর্চা করতে গিয়ে মাদরাসার মুরব্বিদের দোষত্রুটি খুঁজে বেড়ায় তাদের লেখালেখিতে না যাওয়াই ভালো। মাদরাসা কর্তৃপক্ষ লেখালেখির যে পরিবেশ ও সুযোগ করে দিয়েছে তা যথাযথভাবে কাজে লাগানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন বিশিষ্ট এই আলেম লেখক।

এছাড়া তিনি মাওলানা মনজুরুল হক রহ.-এর স্মৃতিচারণ করেন এবং তাঁর জীবনী পড়ার প্রতি শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করেন।

কর্মশালায় মাখযানুল উলুম ছাড়াও ময়মনসিংহের বিভিন্ন মাদরাসা থেকে চার শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। লেখালেখির দির্কনির্দেশনামূলক বক্তব্য দ্বারা তারা বিশেষভাবে উপকৃত হয়েছেন বলে অভিব্যক্তিতে উল্লেখ করেন। এ ধরনের আয়োজন আরও বেশি হওয়ার দাবি করেন লেখালেখিতে আগ্রহী তরুণরা।

প্রসঙ্গত, তরুণদের মধ্যে লেখালেখি চর্চার ঝোঁক বাড়াতে এবং আগ্রহীদের যোগ্য করে গড়ে তুলতে বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম ধারাবাহিকভাবে দেশব্যাপী লেখালেখির বুনিয়াদি কর্মশালার আয়োজন করছে। ইতিমধ্যে ঢাকাসহ দেশের কয়েকটি স্থানে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ফোরামের দায়িত্বশীলেরা।