সর্বদলীয় কাশ্মীর সংহতি ফোরামের বৈঠকে যা আলোচনা হল

135

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: আল্লামা নুর হোসাইন কাসেমী বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিক কিছু বক্তব্য জনমনে গভীর উদ্বেগ তৈরি করেছে। বিশেষ করে মায়ানমার ও ভারতের সাথে জাতিসংঘে উত্থাপিত অনিস্পন্ন সমুদ্রসীমা, ভারত থেকে অস্ত্র ক্রয় এবং কাশ্মীর ও আসাম ইস্যুতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী যেসব বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে দেশের স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব বিষয়ে  জনমনে উদ্বেগ তৈরি হয়।

আজ রোববার (৮ আগস্ট) রাজধানীর পল্টনের জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কার্যালয়ে সর্বদলীয় কাশ্মীর সংহতি ফোরামের এক পর্যালোচনা বৈঠকে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উক্ত বৈঠকে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও কাশ্মীর সংহতি ফোরামের আহ্বায়ক আল্লামা নূর হোছাইন কাসেমী েএসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, পাশাপাশি আগরতলা বিমানবন্দর সম্প্রসারণের জন্য বাংলাদেশের কাছে ভারতের ভূমি চাওয়ার প্রেক্ষিতে ভারতীয় দাবির অনুকূলে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র সচিব-এর যুক্তি উপস্থাপন দেশবাসীকে উদ্বিগ্ন করেছে। তিনি বলেন, এতে করে দেশের স্বার্থ ক্ষুন্ন হওয়ার মতো পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ভারত ও মিয়ানমারের সাথে বাংলাদেশের গভীর সমুদ্র নিয়ে বিরোধ রয়েছে। দেশ দু’টি চলতি শতাব্দির শুরুর দিক থেকে ধাপে ধাপে বঙ্গোপসাগরে কনটিনেন্টাল শেলফ নিয়ে হঠাৎ আগ্রাসী নতুন নতুন বিরোধ তৈরি করে গভীর সমুদ্রে প্রবেশের পথ বিচ্ছিন্ন করে বহির্বিশ্বের সাথে বাংলাদেশের উন্মুক্ত যোগাযোগের পথকে অবরুদ্ধ করে দিতে চায়।

আল্লামা কাসেমী বলেন, সঙ্গত কারণেই দেশের স্বার্থকে রক্ষা করতে বাংলাদেশ কড়া প্রতিবাদ করে এবং এ বিষয়ে জাতিসংঘে আনুষ্ঠানিকভাবে আপত্তি উত্থাপন করে। যা এখনো অনিষ্পন্ন অবস্থায় রয়ে গেছে।

বৈঠকে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ-এর সহ সভাপতি আল্লামা আব্দুর রব ইউসূফী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের আমীর মাওলানা ড. ঈসা শাহেদী,খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, জমিয়তের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন প্রমুখ।