আরব দেশগুলো ক্ষমতা হারানোর ভয়ে মুসলমানদের পাশে দাঁড়াচ্ছে না: ড. আ ফ ম খালিদ

793

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: খ্যাতিমান আলেমে-দ্বীন ও লেখক ড. আ ফ ম খালিদ হোসেন বলেন, আরব দেশগুলো ক্ষমতা হারানোর ভয় ও বাণিজ্যিক স্বার্থে মজলুম মুসলমানের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। ভারতের সাথে আরব আমিরাতের বার্ষিক বাণিজ্য ৫৯.৯ বিলিয়ন ডলার। সৌদি প্রিন্স উইঘুর মুসলমানদের নিপীড়নে চীনের প্রেসিডেন্টকে সমর্থন জানান একই কারণে।

বিজ্ঞাপন

আজ (৫ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম ইসলামী দাওয়াহ কাউন্সিলের উদ্যোগে চাঁদগাঁও এরাবিয়ান লিডারশীপ মাদরাসা মিলায়তনে আয়োজিত এক সেমিনারে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে ড. আ ফ ম খালিদ হোসেন এসব কথা বলেন।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন মাওলানা এনামুল হক আল মাদানী। সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন মুফতি হারুন ইযহার, মাওলানা আফিফ ফোরকান আল-মাদানী, মাওলানা মুহাম্মদ শোয়াইব এবং আরবী ম্যাগাজিন ‘আন নূর’-এর সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ প্রমুখ।

ড. আ ফ ম খালিদ হোসেন বলেন, পারস্পরিক মতপার্থক্য ভুলে গিয়ে বড় বড় ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচী হাতে নিতে পারলে মুসলিম উম্মাহর বিদ্যমান সঙ্কট থেকে নিষ্কৃতি লাভ এবং শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা সম্ভব। এজন্য ইসলামের ভ্রাতৃত্ববোধ ও উম্মাহ চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দ্বীনি আদর্শ, মানবতা এবং জাতীয় স্বার্থে আমিত্ববোধ ও আমিই উত্তম- এমন মানসিকতা পরিত্যাগ করে ছাড় দেওয়ার মানসিকতা লালন করতে হবে। আবেগ নির্ভরতা কমিয়ে বুদ্ধিদীপ্ত পরিকল্পনা ও পদক্ষেপ নিতে হবে। এছাড়া সংঘবদ্ধ ইসলামবিদ্বেষী চক্রকে পরাজিত করা কঠিন হবে।

তিনি আরো বলেন, এখন চীনকে মধ্যস্ততাকারী মেনে রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে দৌড়ঝাপ চলছে। কিন্তু চীন কোনদিনই রোহিঙ্গা মুসলমানদের নাগরিকত্ব প্রসঙ্গ নিয়ে মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ করবে না। কারণ, রোহিঙ্গা ইস্যুকে পুঁজি করে মিয়ানমারের সাথে বিশাল বাণিজ্যিক স্বার্থ রয়েছে। হাজার হাজার বিলিয়ন ডলারের ৩টি মেগা প্রকল্পের কাজ চলছে মিয়ানমারে চীনের অর্থায়নে। এর মধ্যে ৪.৫ বিলিয়ন ডলারের জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের কাজ চলছে ইরাবতী নদীর উৎসস্থলে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদেরকে নিয়ে শুধু চীনই যে খেলছে তা নয়, বরং আন্তর্জাতিক বড় বড় শক্তিগুলো তাদের নিজদের স্বার্থে রোহিঙ্গাদের নিয়ে পৃথক পৃথক খেলায় জড়িয়ে পড়েছে। দুর্ভাগ্যক্রমে বাংলাদেশ এই খেলার গ্যাড়াকলে পড়ে গেছে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে যে যার মতো মতামত ও অসহিষ্ণুতা প্রকাশ বন্ধ করতে হবে সবার আগে। কারণ, এতে জটিলতা আরো বাড়বে এবং সংকটটির প্রতিক্রিয়া দেশে ছড়িয়ে পড়ে পরিস্থিতি আরো জটিল হবে, ভঙ্গুর জাতীয় ঐক্য আরো ভাঙ্গতে থাকবে। এটা অবশ্যই বন্ধ করতে হবে।

ড. আ ফ ম খালিদ বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কট উত্তরণে সবার আগে আমাদের নিখুঁত পরিকল্পনা ও কৌশল ঠিক করতে হবে এবং সে বিষয়ে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করতে হবে। অন্যথায় এই সংকট দীর্ঘ মেয়াদে বাংলাদেশকে আরো ভোগানোর আশংকা প্রবল।