বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে জ্যামে আটকে পড়া যাত্রীদের সড়কে আগুন জ্বেলে বিক্ষোভ প্রদর্শন

36

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: ঈদযাত্রার তৃতীয় দিনেও ঢাকা-টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে অন্তত ৭/৮টি পয়েন্টে তীব্র যানজট রয়েছে। প্রতিটা স্থানেই এক-দেড় ঘণ্টা যানজটে আটকা পড়ে থাকতে হচ্ছে হাজার হাজার যাত্রীবাহী যানবাহন। বিক্ষুব্ধ যাত্রীরা মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে রাস্তায় আগুন জ্বেলে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। আজ বেলা সাড়ে তিনটা পর্যন্ত এ সড়কে যানবাহনের দীর্ঘ সারি ছিল।

এদিকে সিরাজগঞ্জের অংশে গাড়ি টানতে না পারায় সেতুর পূর্বপাড়ে টোল প্লাজায় দফায় দাফায় টোল আদায় বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। কারণ সেতুর উপর যানবাহনের চাপ কমাতেই টোল আদায় বন্ধ রাখা হচ্ছে।

এতে করে দিনে প্রায় দুই ঘণ্টা টোল আদায় বন্ধ রাখার কারণে বঙ্গবন্ধু সেতু এলাকা থেকে মির্জাপুর পর্যন্ত প্রায় ৪০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজট থেকেই যাচ্ছে।

রাস্তায় যানজটের কারণে ঈদে ঘরমুখো মানুষকে পড়তে হচ্ছে চরম ভোগান্তিতে। বিশেষ করে বৃদ্ধ শিশু ও মহিলা যাত্রীদের দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে বেশি।

হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট ইফতেখার নাসির রোকন জানান, সিরাজগঞ্জ অংশে গাড়ি টানতে না পারার কারণে আজ সকালেও বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল আদায় দুই দফা বন্ধ ছিল। আর এ কারণে দীর্ঘ যানজট হয়েছে।

বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসানুল কবির জানান, টোল আদায় বন্ধ করা হয়নি। সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন আটকে থাকলে টোল আদায় করা এমনিতেই সম্ভব হয় না।

অপরদিকে মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলাচল করায় তা যত্রতত্র বিকল হয়ে যাবার কারণেও যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়।