রক্ষা পাচ্ছে না প্রার্থনাস্থলও, মসজিদে বিজেপির পতাকা

136

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: নরেন্দ্র মোদির আমলে হিন্দুত্ববাদের নিত্যনতুন উগ্রতার সঙ্গে পরিচিত হচ্ছে ভারত। অনিশ্চয়তায় ডুবছে দেশটির সংখ্যালঘু মুসলিমরা। রক্ষা পাচ্ছে না তাদের প্রার্থনাস্থলও।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনার নিমতার তেঘরিয়ায় একটি মসজিদে বিজেপির পতাকা বাঁধাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ জানায়, রবিবার বিকেলে তেঘরিয়া এলাকায় ছিল ক্ষমতাসীন বিজেপির সভা। দুপুরে এলাকায় দলীয় পতাকা বাঁধছিলেন বিজেপি কর্মীরা।

একপর্যায়ে তারা স্থানীয় তেঘরিয়া জামে মসজিদে পতাকা বাঁধতে গেলে নিষেধ করেন ইমাম। কিন্তু বিজেপি কর্মীরা ইমামের কথা উপেক্ষা করে মসজিদে দলীয় পতাকা ঝুলিয়ে দেয়।

এনিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে বিবাদ শুরু হয় বিজেপি কর্মীদের। আতঙ্ক ছড়াতে তারা ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিতে শুরু করে। খবর পেয়ে তৃণমূল নেতাকর্মীরা এগিয়ে এলে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এলাকা ছাড়ে বিজেপি কর্মীরা।

ঘটনার প্রতিবাদে কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ে অবরোধ করে তৃণমূল নেতাকর্মীরা। প্রায় মিনিট ২০ অবরোধ চলার পর তুমুল বৃষ্টি নামলে রণে ভঙ্গ দেন তারা।

পরে নিমতা থানা ও ব্যারাকপুর কমিশনারেটের পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মসজিদের ইমাম মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “৩৪ বছরের সিপিএম আমলে কেউ মসজিদে দলীয় পতাকা বাঁধল না। তৃণমূল আমলেও এমন ঘটনা ঘটেনি। বিজেপি এসে মসজিদে পতাকা বাঁধল।”

তিনি বলেন, “আমি তাদেরকে বাধা দিয়েছি। বলেছি, মসজিদ একটি অরাজনৈতিক জায়গা। এখানে দলীয় পতাকা বাঁধতে হবে কেন?”

তবে বিজেপির উত্তর দমদম পূর্ব মণ্ডল সভাপতি রমেন দে’র দাবি, “রাজনৈতিকভাবে তৃণমূল দেউলিয়া হয়ে গেছে। তাই পতাকা হোর্ডিং লাগাতে দিচ্ছে না, সভা করতে দিচ্ছে না। রাজ্যে বিজেপির উত্থানে ওরা ভয় পেয়েছে।”