দেশ্রদ্রোহী প্রিয়া সাহাকে বাংলাদেশে পা রাখতে দেয়া হবে না: ফয়জুল করীম

217

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: বর্ণবাদী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু নির্যাতনের ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলা প্রিয়া সাহার বাংলাদেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার আহবান জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ ফয়জুল করীম

তিনি বলেন, দেশ্রদ্রোহী ও চরম সাম্প্রদায়িক আচরণ করা এদেশের রাষ্ট্রদ্রোহীদের অনুচর প্রিয়া সাহাকে বাংলাদেশের জমিনে পা দিতে দেওয়া হবে না।

১৯ জুলাই শুক্রবার মধ্যরাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, হিন্দু ধর্মের অনুসারী প্রিয়া সাহা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিশ্ব মোড়ল ও ইসলাম বিদ্ধেষী ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে দেশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করে রাষ্ট্রদ্রোহীতার অপরাধ করেছেন। তার মতো একজন দেশবিরোধী দেশে প্রবেশের অধিকার রাখে না। দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন্য করে এই নারী বাংলাদেশে থাকার অধিকার হারিয়েছেন। তাই আমেরিকা থেকে ফেরার পথে বাংলাদেশ এয়ারপোর্টে তাকে আটকে দেওয়া উচিত। সাথে সাথে তার স্বামী দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক মলয় সাহাকে তার স্ত্রীর রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকান্ডে সহযোগীতার দায়ে আগামী কর্মদিবসের আগে তার পদ থেকে বহিস্কারেরও দাবি তুলেছেন তিনি।

মুফতী ফয়জুল করীম বিবৃতিতে বলেন, প্রিয়া সাহা দেশের খেয়ে দেশের পড়ে দেশবিরোধী এমন মিথ্যা অভিযোগ কেন দিলো তা খতিয়ে দেখতে হবে। তাকে সঠিক বিচারের আওতায় না আনা হলে দেশে কঠোর আন্দোলন করা হবে বলেও তিনি হুঁশিয়ারী উচ্চারন করেন।

তিনি বলেন, এই নারী ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে যা বলেছেন তা তার একার বক্তব্য নয় বরং এ দেশের রাষ্ট্রবিরোধী কিছু দালাল ও দোসরদের শেখানো বক্তব্য সে মুখপাত্র হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বলেছেন। তাই যারা তাকে পরিকল্পিতভাবে আমেরিকায় পাঠিয়েছে এবং দেশবিরোধী বক্তব্য দিতে বলেছে তাদেরকে খুজে বের করে অতি-শীগ্রই আইনের আওতায় না আনা হলে দেশের সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে পড়বে।

প্রসঙ্গত : মহিলা ঐক্য পরিষদ’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রিয়া সাহা আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করে বলেন, বাংলাদেশের প্রায় ৩৭ মিলিয়ন (৩ কোটি ৭ লাখ) সংখ্যালঘুদেরকে বিভিন্ন ভাবে খুন, গুম করা হয়েছে। এমনকি সে নিজেও দাবি করেছে তার ঘর বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে মুসলিমরা। এবং এসবই হয়েছে রাষ্ট্রীয় মদদে মুসলিম ফান্ডামেন্টাল গ্রুপের মাধ্যমে। কিন্তু বাস্তবিকভাবে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা সবচেয়ে নিরাপদ এবং সুন্দর জীবন যাপন করে থাকে যা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত বিষয়। কেবলমাত্র হিংসার বশবর্তি হয়ে দেশের বিরুদ্ধে এমন ভয়ংকর মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে সারাদেশে নিন্দিত হচ্ছেন এই প্রিয়া সাহা।