‘কুরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশন’: গবেষণার অন্তরালে কী হচ্ছে?

1306

ইসলাম টাইমস প্রতিবেদন: গতকাল ইসলাম টাইমসে কুরআন হাতে `কুরআন বিরোধী’ গান শিরোনামে একটি খবর প্রকাশ করা হয়েছে। খবরটি প্রকাশের পর বিভিন্নজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। কেউ কেউ  এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত জানতে চেয়েছেন। কেউ কেউ কুরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশন সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন।

পাঠকদের  সেই প্রতিক্রিয়া নিয়ে ইসলাম এর পক্ষ থেকে ফোনে কথা বলা হয়েছে মাসিক আলকাউসারের সহ-সম্পাদক, মারকাযুদ দাওয়াহ আল ইসলামিয়া ঢাকার শিক্ষক মাওলানা যাকারিয়া আব্দুল্লাহর সাথে।

‘যুগের জ্ঞানের আলোকে কুরআনের অনুবাদ’ বইয়ের লেখক, কুরআন রিসার্চ ফাউন্ডেশনের পরিচালক প্রফেসর ডা. মতিয়ার রহমান সম্পর্কে জানতে চাইলে মাওলানা যাকারিয়া আব্দুল্লাহ ইসলাম টাইমসকে জানান, এই ভদ্রলোক সম্পর্কে এবং এই ভদ্রলোকের কুরআন অনুবাদ সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।  তাঁর রচিত যে সকল বইপত্র প্রকাশিত হয়েছে তা দেখলে ইসলাম সম্পর্কে যার সাধারণ জ্ঞানও আছে তিনি  এই লোকের বিভ্রান্তিগুলো ধরে ফেলতে পারবে।

মাওলানা যাকারিয়া আবদুল্লাহর কথামত ডা. মতিয়ার রহমানের বইগুলো নাড়াচাড়া করে দেখা গেল,মুসলিম উম্মাহর মাঝে প্রজন্ম পরম্পরায় প্রতিষ্ঠিত বিভিন্ন আমল ও আকিদা সম্পর্কে সাধারণ মানুষের মাঝে সংশয় তৈরি করাই তার বইপত্রের প্রধান বিষয়বস্তু। তার কোনো বইয়ে বলা হয়েছে, কুরআন স্পর্শ করার জন্যে ওজুর দরকার নেই। কোনো বইয়ে বলা হয়েছে, ইচ্ছাকৃতভাবে অর্থ না বুঝে কুরআন পড়া গুনাহের কাজ। কোনো বইয়ে বলা হয়েছে, হাদীস শাস্ত্রের মাধ্যমে এই উম্মতের মধ্যে ভুল ঢুকানো হয়েছে। কোনো বইয়ে তাকদীর সম্পর্কে সংশয় সৃষ্টির প্রয়াস চালানো হয়েছে।

এদিকে ঢাকার জামিয়াতুল উলূমিল ইসলামিয়া মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা তাহমিদ মাওলা বলেছেন,অর্থ না বুঝে কুরআন পড়লে গুনাহ হবে এই ধরণের কথা বলা, এ ধরণের চিন্তা পোষণ করা একটি ভয়াবহ ফিকরি বিদআত তথা মারাত্মক চিন্তাগত বিকৃতি। আজ পর্যন্ত ইসলামের সুদীর্ঘ ইতিহাসে নির্ভরযোগ্য স্তরের কেউ এ ধরণের কথা বলেননি।

মাওলানা তাহমীদুল মাওলা মনে করেন,যারা এসব কথা বলেন,তারা ইচ্ছায় কিংবা অনিচ্ছায় সাধারণ মানুষকে কুরআন থেকে দূরে সরিয়ে দিচ্ছেন। তারা ইসলামের মূলধারার কেউ নন। তারা ইসলামের মূলধারা থেকে বিচ্ছিন্ন।

ডা. মতিয়ার রহমানের বিভিন্ন বই সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে এই আলেম জানান, এই ভদ্রলোকের বইগুলো পড়লে ইসলাম সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান রাখেন এমন যে কেউ বুঝতে পারবে, এই লোক হয়তো ‘মানসিকভাবে অসুস্থ’ আর নয়তো তিনি কারো এজেন্ডা বাস্তবায়নে লিপ্ত।