প্রশ্নোত্তর: ইসলামি সঙ্গীত সম্পর্কে শরীয়তের বিধান কী?

352

প্রশ্ন: বর্তমানে গজল বা নাশীদকে ইসলামি সঙ্গীত বলা হয় এবং এই ইসলামী সংগীতের নামে অনেক শিল্পী সেই সংগীতে মিউজিক ব্যবহার করে। এর মধ্যে দেশ-বিদেশের অনেক পরিচিত মুখও রয়েছে। এই ব্যাপারে শরীয়তের বিধান কী?

উত্তর: বাদ্য-বাজনা শোনা নাজায়েয। তাই হামদ-নাতের সাথে বাদ্য-বাজনা থাকলে ওই হামদ-নাত শোনা জায়েয হবে না। এছাড়া হামদ-নাত, গজলের সাথে এটা যুক্ত করা বেয়াদবিও বটে। তাই এ থেকে বিরত থাকা কর্তব্য। তবে হামদ-নাত, গজল যদি সম্পূর্ণ বাজনা ও মিউজিক মুক্ত হয় এবং তার কথা যদি সহীহ হয়, শরীয়তের কোনো আকীদা বা নির্দেশের পরিপন্থী না হয় তাহলে তা বলা ও শোনা জায়েয।

উল্লেখ্য যে, যারা হামদ-নাত বা ইসলামী ধাঁচের গজল পরিবেশন করবেন তাদের দায়িত্ব হলো, এতে স্বাতন্ত্র্য বজায় রাখা এবং প্রচলিত গানের সুরে তা না বলা। তেমনি এসব ক্ষেত্রে অন্যদের পরিভাষা যেমন কনসার্ট, গান ইত্যাদি শব্দও পরিহার করা উচিত।

-সহীহ বুখারী, হাদীস ৫৫৯০; সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৩৬৮৫; মুসতাদরাকে হাকেম, হাদীস ৬৯০৮; খুলাসাতুল ফাতাওয়া ৪/৩৪৫; ফাতহুল কাদীর ৬/৪৮১; আলবাহরুর রায়েক ৭/৮৮; ইসলাম আওর মূসিকী, মুফতী মুহাম্মাদ শফী রাহ.

[ সৌজন্যে: ফতোয়া বিভাগ, মারকাযুদ্দাওয়াহ আল ইসলামিয়া. ঢাকা]