কুমিল্লার মুরাদনগরে সাদপন্থীদের ইজতেমা বন্ধ করে দিল প্রশাসন

ইসলাম টাইমস প্রতিবেদন: কুমিল্লার মুরাদনগরে সা’দপন্থীদের উদ্যোগে শুরু হতে যাওয়া তিন দিনব্যাপী জেলা ইজতেমা বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। আইনশৃংখলা রক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে এই ইজতেমা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল এগারোটায় কুমিল্লা জেলার সর্বস্তরের উলামায়ে কেরাম ও তাবলীগের সাথীদের উদ্যোগে কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার বাখরনগর গ্রামে সাদপন্থীদের ডাকা জেলা ইজতেমা বন্ধের দাবিতে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ও গনজমায়েত কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন

কুমিল্লার জেলা প্রশাসক কুমিল্লা আদর্শ সদরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু সালাম মিয়ার মাধ্যমে উলামায়ে কেরাম ও তাবলীগের সাথীদের প্রতিনিধিদের ডেকে পাঠান। জেলা প্রশাসক  অসুস্থ থাকায় তার প্রতিনিধি  এ ডি সি আজিজুর রহমান উলামায়ে কেরামের প্রতিনিধিদলকে বলেন যে, মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাথে আলোচনা করে সাদপন্থীদের ইজতেমা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। অতঃপর আদর্শ সদর এর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ প্রদান করেন যে গণজামায়েতের সামনে এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করার জন্য।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাদপন্থীদের ইজতেমা বন্ধের ঘোষণা দিলে উপস্থিত হাজার হাজার ওলামা ও  তাবলীগের সাথীবৃন্দ আল্লাহ তায়ালার শুকরিয়া আদায় করেন ও প্রশাসনের এই যুগোপযোগী সঠিক সীদ্ধান্ত কে স্বাগত জানিয়ে অসুস্থ জেলা প্রশাসকের সুস্থতার জন্য দোয়া করে কর্মসূচি সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

উলামায়ে কেরাম ও তাবলীগের সাথীদের প্রতিনিধিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা ক্বওমি মাদরাসা সংগঠনের সম্মানিত সভাপতি আল্লামা নুরুল হক সাহেবের নেতৃত্বে মাওঃ মুনির হোসাইন, মাওঃ আব্দুল কুদ্দুস, মুফতি জিলানি এবং তাবলীগের সাথীদের মধ্যে ডাঃ জসিম খন্দকার, নুর মসজিদের মোতাওয়াল্লি হাজী মারুফুর রশিদ, হাজি আখতার হোসেন, মাওলানা মুফিজুল ইসলাম প্রমুখ।

এদিকে আজ সকাল এগারোটায় প্রশাসনের কাছে সাদপন্থীদের ইজতিমা বন্ধ করার দাবিতে কুমিল্লার মুরাদনগর থানায় সর্বস্তরের আলেম ওলামা ও সাধারণ তাবলীগি সাথীদের বিশাল গণমিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিজ্ঞাপন