সালমান আওদার কী দোষ: ছেলের আকুতিভরা টুইট

968

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে এনে সৌদি আরবের যে তিন বিশিষ্ট আলেমের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের  প্রস্তুতি নিচ্ছে সৌদি সরকার, তাদের একজন সালমান আওদা।  কয়েকদিন আগে  সালমান আওদার ছেলে ড. আবদুল্লাহ আওদার একটি আকুতিভরা টুইট গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। ইসলাম টাইমসের পাঠকদের জন্যে টুইটটির সংক্ষিপ্ত অনুবাদ পেশ করা হল।

Abdullah Alaoudh

ড. আবদুল্লাহ আওদাহ।।

এই তো কয়েক দিন আগে পবিত্র নগরী মক্কায় যেখানে কুরআন নাযিল হয়েছে এবং যেখান থেকে ইসলামের সূচনা হয়েছে, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের প্রায়  ৮০ জন মুফতির উপস্থিতিতে “কোরআন ও সুন্নাহর আলোকে মধ্যপন্থা ও পরিমিতিবোধ” শিরোনামে একটি আন্তার্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়ে গেল।

সম্মেলনটি যেখানে অনুষ্ঠিত হয় এর কয়েক কিলোমিটার দূরেই ‘যাহবান’ কারাগার, যেখানে ইসলামী বিশ্বে ‘মধ্যপন্থা’র মডেল হিসাবে পরিচিত কয়েকজন আলেমকে বন্দী করে রাখা হয়েছে। তাদের মাঝে আমার বাবা সালমান আওদাও আছেন।

মধ্যপন্থা অবলম্বনের জন্যে সম্মেলনে পেশকৃত অধিকাংশ মূলনীতি অনেক গুরুত্বপূর্ণ।   এতে উগ্রতা, সহিংসতা, উগ্র সম্প্রদায়িকতা এবং মানবাধিকার লংঘনসহ  এমন সব কাজের নিন্দা জানানো হয়েছে, যা মানুষকে ইসলাম থেকে দূরে ঠেলে দেয়।

এই সুন্দর নীতিকথাগুলো এমন এক জায়গায় পেশ করা হয়েছে, যার কয়েক কিলো দূরে ‘যাহবান’ কারাগারে বন্দী আছেন এই নীতিকথাগুলোরই কয়েকজন ধারক বাহক।

এই সম্মেলনে এ নীতিকথারও চর্চা হয়েছে যে, অন্যের মতকে সহ্য করতে হবে। ভিন্ন মতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে।

এমন পরিস্থিতিতে এ সকল নীতিকথার উপর অনুষ্ঠিত সম্মেলন দেখে কি লজ্জিত না হয়ে পারা যায়? এ সম্মেলনে আগত মেহমানদের কি এখানে পরস্পর বিপরীত কিছু নজরে পড়েনি?

আমি হতবাক হয়েছি, এই সম্মেলন এবং এখানে আগত মেহমানরা তাদের কয়েকজন সহকর্মী যারা কারাগারে মৃত্যুর প্রহর গুণছেন তাদের সাথে কেমন আচরণটাই না করলেন। যারা পরমত সহিষ্ণুতা , ভিন্ন মতের প্রতি শ্রদ্ধার কথা  আমাদের  শোনালেন, তারা কিভাবে সে সকল আলেমের কারাভোগ কে মেনে নিলেন, যারা  সম্মেলনে উত্থাপিত  অধিকাংশ মূলনীতি শুধু মানেনই না  বরং সেগুলোর প্রচার প্রসার করে আসছেন যুগযুগ ধরে?

আলেমদের সেই গায়রত ও আত্মমর্যাদা কোথায়, যার ফলে তারা শাসকবর্গের স্বার্থের উপর উম্মাহর স্বার্থকে প্রাধান্য দিতেন?  আলিমদের সেই প্রজ্ঞাপূর্ণ নসীহত, শাসকবর্গ থেকে দূরে থাকা, তাদেরকে ভীতি প্রদর্শন করা, মুসলমানদের দুঃখ দুর্দশায় এগিয়ে আসার  সেই গুণ ও বৈশিষ্ট্য কোথায়?

পূর্বসূরী আলেমদের এ সকল গুণ ও বৈশিষ্ট্য যদি ধারণ করতে না পারি, তাহলে তো আমরা আলেম নাম ধারণ করার উপযুক্ত নই।

সূত্র: টিআরটি ওয়ার্ল্ড

অনুবাদ: এনাম হাসান জুনাইদ