সূর্যাস্তের সাথে সাথেই ইফতার করা মুস্তাহাব

48

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: হযরত আবদুল্লাহ ইবেন আব্বাস রা. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেন,
ِإنا معاشر الأنبياء أمرنا أن نعجل فطرنا وأن نؤخر سحورنا. قال الهيثمي : رجاله رجال الصحيح.
‘সকল নবীকে (সময় হয়ে গেলে দেরি না করে) তাড়াতাড়ি ইফতার করতে আদেশ করা হয়েছে এবং সাহরী বিলম্বে খেতে বলা হয়েছে।’ -আলমুজামুল আওসাত ২/৫২৬; মাজমাউয যাওয়াইদ ৩/৩৬৮ আমর ইবনে মায়মুন আলআওদী বলেন, ‘সাহাবায়ে কেরাম দ্রুত ইফতার করতেন আর বিলম্বে সাহরী খেতেন।’-মুসান্নাফ আবদুর রাযযাক হাদীস : ৭৫৯১; মুসান্নাফে ইবনে আবী শাইবা হাদীস : ৯০২৫

মাসআলা :
দেরি না করে সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার করা মুস্তাহাব। হাদীস শরীফে আছে,
لا يزال الناس بخير ما عجلوا الفطر.
যতদিন মানুষ দেরি না করে সূর্যাস্তের সঙ্গে সঙ্গে ইফতার করবে ততদিন তারা কল্যাণের উপর থাকবে।-সহীহ বুখারী ১/২৬৩

মাসআলা :
মাগরিবের নামায পড়ার আগে ইফতার করে নিবে, যেন সূর্যাস্তের সাথে সাথে ইফতার করার সওয়াব পাওয়া যায়। হযরত আনাস ইবনে মালিক রা. বলেন, ‘রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাগরিবের নামায পড়ার আগে তাজা খেজুর দিয়ে ইফতার করতেন। তাজা খেজুর না পেলে শুকনা খেজুর দ্বারা, তাও না পেলে এক ঢোক পানি দ্বারা ইফতার করতেন।’-সুনানে তিরমিযী হাদীস : ৬৯২

মাসআলা :
খেজুর দ্বারা ইফতার করা মুস্তাহাব। খেজুর না পেলে পানি দ্বারা ইফতার শুরু করবে।
من وجد تمرا فليفطر عليه ومن لا يفطر على ماء فإن الماء طهور
আনাস ইবনে মালিক রা. থেকে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘যার কাছে খেজুর আছে সে খেজুর দ্বারা ইফতার করবে। খেজুর না পেলে পানি দ্বারা ইফতার করবে। কেননা পানি হল পবিত্র।’ -সুনানে তিরমিযী হাদীস : ৬৯০ আরো দেখুন : মুসান্নাফ আবদুর রাযযাক ৭৫৮৬