‘খ্রিস্টান হামলাকারীকে ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলতে চাচ্ছে না কেন পশ্চিমা মিডিয়াগুলো?’

139

ইসলাম টাইমস ডেস্ক : নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে খ্রিস্টান জঙ্গির হামলায় শহীদ হয়েছেন ৪৯ জন মুসলিম। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ৫০ জন। বর্বরতম এ হামলায় নিন্দার ঝড় বইছে দেশ-বিদেশে।

এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন মোস্তফা সরোয়ার ফারুকী। তিনি নৃশংস এ হামলাকে পশ্চিমা গণামাধ্যম সন্ত্রাসবাদ হিসেবে উল্লেখ না করতে চাওয়ার নিন্দা জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছেন-

‘যখন একজন খ্রিস্টান শ্বেতাঙ্গ অধিপত্যবাদী মসজিদে মানুষ হত্যা করে, তখন পশ্চিমা গণমাধ্যম সেটিকে ‘গণহত্যা’ বলে প্রচার করে। কিন্তু যখন কোনো মুসলিম হামলা করে এবং মানুষ হত্যা করে, তখন একে প্রচার করা হয় ‘সন্ত্রাসবাদ’ হিসেবে।’

পশ্চিমা গণমাধ্যমের সমালোচনা করে ফারুকী আরও লিখেন, ‘প্রিয় পশ্চিমা মিডিয়া, আপনারা কবে এই দুটি বিষয়কেই সন্ত্রাসী হামলা বলে আখ্যা দেবেন? আপনারা কি কখনো ভেবে দেখেছেন, আপনাদের এই পক্ষপাতিত্ব বিশ্বব্যাপী ঘৃণা বিস্তারে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে?’

এর পর তিনি বিশেষ দ্রষ্টব্য দিয়ে লিখেন, ‘দেখে ভালো লাগছে কিছু পশ্চিমা মিডিয়া ও রাজনৈতিক নেতারা একে একটি সন্ত্রাসী হামলা বলতে শুরু করেছে। যদিও তা কয়েক ঘণ্টা পরে! আর দেরি না করা উত্তম। অন্যদের তা অনুসরণ করা উচিত।’

আরও পড়ুন : ক্রাইস্টচার্চের এই জঙ্গিবাদ নিয়ে ট্রাম্পগোষ্ঠী কথা বলছে না কেন?

উল্লেখ্য, ব্রেনটন টারান্ট নামে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ২৮ বছর বয়সী এক খ্রিস্টান জঙ্গির হামলায় শুক্রবার নিউজিল্যান্ডে ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদে স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে জুমার নামাজ চলাকালে মুসল্লিদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। কাছাকাছি লিনউড মসজিদে দ্বিতীয় দফায় হামলা চালানো এই নরাধম। দুই মসজিদে হামলায় শহিদ হন ৪৯ জন মুসুল্লি। এর মধ্যে আল নুর মসজিদে ৪১ জন ও লিনউড মসজিদে সাতজন নিহত হন।